Posted By

বিবিধ জোকস , হা হা !!!!

Education 38

১) লিটল জন পাহাড়ের সর্বোচ্চ চুড়ায় উঠে ইশ্বরকে ডাকাডাকি শুরু করলো…

জনঃ ইশ্বর ও ইশ্বর!!! শুনছো!

ঈশ্বরঃ কি হয়েছে আমার প্রিয় জন?

জনঃ তোমার কাছে ১ কোটি বছর মানে কতক্ষন?

ঈশ্বরঃ আমার কাছে ১ কোটি বছর হলো ১ মিনিট।

জনঃ ও, আচ্ছা তোমার কাছে ১০০০ কোটি টাকা মানে কত পয়সা?

ঈশ্বরঃ ১০০০ কোটি টাকা আমার কাছে তো ১ পয়সারও কম।

জনঃ তাইলে তুমি আমাকে ১টা পয়সা দাওনা। প্লিইইজ।

ঈশ্বরঃ মাত্র ১ পয়সা!! ঠিক আছে বাছা। জাস্ট ১ মিনিট ওয়েট করো।

-এই বলে ইশ্বর অদৃশ্য হলেন।

(২) এক পরীক্ষায় প্রশ্ন আসলো । কিভাবে একটা পিপড়া কে মারতে হয়…? প্রশ্নটা ১৫ মার্ক এর। এক ছেলে উত্তর লেখছেঃ প্রথমে চিনির সাথে মরিচের গুড়া মিশায় রেখে দিতে হবে। পিপড়া সেটা খেয়ে পানি খুজবে চারদিকে। পানির বালতি তে যেয়ে পিপড়া টা পড়ে যাবে,তারপর সেটা নিজেকে শুকাতে আগুনের কাছে যাবে, আগুনের কাছে আগে থেকেই একটা বোম্ব রাখা লাগবে। বোম্ব ফুটে পিপড়া আহত হয়ে হসপিটাল এ যাবে, তার মুখে অক্সিজেন মাস্ক দেয়া থাকবে, সেই অক্সিজেন মাস্ক টা খুলে দিলেই পিপড়াটা মরে যাবে। ১৫ মার্ক এর জন্য স্টুডেন্টরা সবইপারে ।

(৩) এক পুলিশের ছেলে পরীক্ষায় সব বিষয়ে আন্ডা পাইছে।

পুলিশ : হারামজাদা, অল সাবজেক্টে আন্ডা পাইছোস ! এখন তুই-ই বল, তোরে কি শাস্তি দিমু?

ছেলে : এই লও ৫০ টেকা, কেইসটা খতম কইরা দ্যাও ! হিঃ হিঃ হিঃ একেই বলে বাপ কা বেটা !!

(৪) একলোক মারা গেছে। তো সে স্বর্গে গিয়ে দেখল একটা বিশাল ওয়াল দেয়াল-ঘড়িতে পরিপূর্ণ !

লোকটি স্বর্গের দূতকে জিঞ্জেসকরল,এখানে এতগুলো ঘড়ি কেন?

স্বর্গের দূত : এগুলো হল মিথ্যাঘড়ি. প্রত্যেক মানুষের জন্য একটাকরে মিথ্যা ঘড়ি আছে। দুনিয়াতে থাকা অবস্থায় কেউ যদিএকটি মিথ্যা কথা বলে তাহলে ঘড়িটি একবার দুইটি বললে দুবার ঘুড়বে,এইভাবে যেযত মিথ্যা বলে তার ঘড়িততবার ঘুড়বে।

লোক : ঐ ঘড়িটি কার?

দূত : এটা mother তেরেসার ঘড়ি। তার ঘড়িটি একবারও ঘুড়েনি। তার মানে তিনি দুনিয়াতে থাকা অবস্থায় একটাও মিথ্যা কথাবলেন নি।

লোক : বাংলাদেশের রাজনীতিবিদ- দের ঘড়ি গুলো কোথায়???

দূত : তাদের ঘড়িগুলো আমাদের অফিসে আছে। এগুলোকে আমরা টেবিল ফ্যান হিসেবে ব্যবহার করি ।

(৫) এক পাগল অনেক দিন ধরে এক মেন্টান হসপিটাল এ চিকিৎসাধীন। এক দিন পাগলটি এক লোককে পানিতে পরে ডুবে যেতে দেখে তাকে পানি থেকে টেনে তুলল। এ ঘটনা এক ডাক্তার দেখে মনে মনে ভাবল যে পাগল মানুষের প্রান বাচাঁতে পারে সে নিশ্চয় আর পাগল নেই। সে সুস্থ্য হয়ে গেছে। এই ভেবে সে পাগলকে তার চেম্বারে ডেকে পাঠলো। ডাক্তার পাগল কে বলল, আমার মনে হয় তুমি সুস্থ্য হয়ে গেছ এবং আমরা তোমাকে ছেড়ে দেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ সময় এক নার্স এসে খবর দিল, পাগলটি যে লোককে বাচিয়েছিল, সে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে এ কথা শুনে ডাক্তার পাগল কে বলল, দেখ, খুবই দুঃখের কথা যে তুমি যে লোককে বাচিয়েছিল, সে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তখন পাগটি বলল, লোকটি তো মরেনি, সে পানিতে বিঝে গিয়েছিল তো, তাই তাকে রোদে শুকাতে দিয়েছি

(৬) পূর্নিমা রাত ছিল……

ওর হাতে আমার হাত ছিল…

ওর পায়ে আমার পা ছিল…

… ওর উপরে আমি ছিলাম

আমার নীচে ও ছিল…… বলুনতো ও আমার কে ছিল?…

ও আমার সাইকেল ছিল

(৭) ২ বন্ধু রাস্তা তে হাটতে গল্প করছিলো…

উলটো পাশ থেকে ২ টা মেয়ে আসছিলো…হটাৎ

১ম বন্ধুঃ ” সর্বনাশ…আমার বউ আর প্রেমিকা একসাথে আসছে…”

২য় বন্ধুঃ ” হে আল্লাহ… আমারো…”

(৮) নতুন ব্যাটসম্যান ক্রিজে এলেন। নিজের গার্ডগুলো পরীক্ষা করে দেখলেন। একটু নড়েচড়ে শরীরটাকে চাঙা করে নিলেন। চারদিকে ফিল্ডারদের অবস্থানটাও একনজর ঘুরে দেখলেন। এরপর শূন্যে কয়েকবার ব্যাট হাঁকিয়ে আম্পায়ারকে জানালেন, সে তৈরি। আম্পায়ার বোলারকে বল করতে অনুমতি দিলেন। বোলার বলও করলেন এবং সোজা মিডল স্ট্যাম্প উড়ে গেল। তখন পেছন থেকে উইকেট কিপার বললেন, ‘কী লজ্জা! এত ভাব দেখানোর পর মাত্র এক বলেই স্ট্যাম্প উড়ে গেল।’ ব্যাটসম্যান তখন বললেন, ‘লজ্জা তোমাদেরই পাওয়া উচিত। একজন নতুন অতিথির সঙ্গে কীভাবে আচরণ করতে হয় সেটা তোমাদের বোলার এখনো শেখেনি।

(৯) চাকর ও মালিকের কথা :

চাকর :অচ্ছা সাহেব একটা কথা বলি?

সাহেব : বল

চাকর :আপনি যে মেডাম এর ঠোটে ঠোট দিয়ে প্রতিদিন কি যেন করেন ওই টা করে কি আপনি মজা পান ?

সাহেব : তোর কি মনে হয় ?

চাকর :মনে হয় আরাম ই পান .!

সাহেব : কিভাবে বুঝলি?

চাকর কারন...

.

.

.

যদি পরিশ্রমের কাজ হত তাহলে এই কাজটা ও আমাকে দিয়েই করাতেন...!!

মালিক তো পুরাই থ...

(১০) স্ত্রী :~ ওগো শুনছ, আমাকে সার্কাস দেখাতে নিয়ে যাবে ?

স্বামী :~ সময় হবে না, আমি বিজি আছি ।

স্ত্রী :~ এই সার্কাসে নাকি একটা মেয়ে কাপড় ছাড়া সিংহের পিঠে বসে খেলা দেখাচ্ছে !

স্বামী :~ তুমি সত্যি এমন জেদি ! জেদ ধরে ঠিক আমাকে রাজী করাবেই ! চলো সার্কাস যাই, অনেক দিন সিংহ দেখিনি ।

পরে ...

স্বামী অতি উদার হয়ে একেবারে সামনের সারির টিকিট কাটলো দুজনের জন্য । সিংহের খেলা দেখানো হয়ে গেলো, অথচ কোন মেয়ে এলোনা কাপড় না পরা অবস্থায় । সার্কাসের শো শেষ ও হলো একসময় ।

স্বামী :~ তুমি তো বলেছিলে যে, একটা মেয়ে আসবে কাপড় না পরে ? কিন্ত মেয়ের গায়ে তো কাপড় ছিল!

পত্নী :~ আমি বিনা কাপড়ে সিংহের কথা বলেছিলাম, মেয়ের কথা একবারও বলিনি তো...!

" বিশ্বাস না হয়, আর একবার পড়ে দেখো

(১১) বল্টু তার শ্বশুরবাড়ি এসেছে।তার শালিকা তাকে ঠকানোর জন্য সরবতের নামে কাঁচের গ্লাসে গরুর প্রসাব খেতে দিয়েছে।তার পর কি ঘটেছে বাড়ি ফিরে তার বন্ধুদের কাছে গর্ব ভরে প্রকাশ করছে-

বল্টু-আমাকে ঠকাবে?আমি হাওড়ার তেরেকবাজ।এক ঢোক ,দুই ঢোক,তিন ঢোক খেয়েই বলে দিলাম এটা সরবত নয় গরুর মুত।

এক বন্ধু তখন বলে উঠলো:-গ্লাসে আর কিছু বাকি ছিল?

(১২) একটি ছেলে প্রেম শুরু করে কীভাবে এবং একটি মেয়ে প্রেম শেষ করে কীভাবে যানেন? একটি ছেলে প্রেম শুরু করেঃ আজকে থেকে আমরা দুজনে একে ওপরের বন্ধু হতে পাড়ী। একটি মেয়ে প্রেম শেষ করেঃ আজ থেকে আমরা একে ওপরের বন্ধু।

(১৩) ১ম বন্ধুঃ কিরে আজ না তোর বিয়ে?

২য় বন্ধুঃ আর বলিসনা, বিয়েটা ভেঙে গেছে!

১ম বন্ধুঃ কেন, কী হয়েছে?

২য় বন্ধুঃ মশা মেরেছিলাম।

১ম বন্ধুঃ মশা মারলে বুঝি বিয়ে ভেঙে যায়?

২য় বন্ধুঃ হ্যা, কারণ মশাটা বসেছিলো আমার. শশুড়ের গালে !

(১৪) এক লোক এক বাসায় গিয়ে পানি চাইল।ছোট বাচ্চাঃ পানি নেই।। লাচ্ছি চলবে??

লোকঃ অবশ্যই।। অনেক শুকরিয়া।। লোকটি ৫গ্লাস লাচ্ছি পরপর খেয়ে জিজ্ঞেস করল, তোমাদের বাসায় কেও লাচ্ছি খায় না??

বাচ্চাঃ জী খায়।। কিন্তু আজ লাচ্ছি তে টিকটিকি পড়ে গেছ কেও খায়নি!!এ কথা শুনে লোকটির হাত থেকে গ্লাস পড়ে গেলো!! বাচ্চাটি কাঁদতে কাঁদতেবলল ইনি গ্লাস ভেঙ্গে ফেলেছেন ! এখন কুকুর দুধ খাবে কিসে!

(১৫) বিবাহে প্রবল অনিচ্ছুক এক লোককে বলা হলো: সারাটা জীবন একা একাই কাটাবে? ভেবে দ্যাখো, তুমি যখন মরণশয্যায়, তখন তোমার মুখে পানি দেওয়ার মতো কেউ থাকবে না। কোনো প্রতিযুক্তি দেখাতে না পেরে বিয়ে করতে রাজি হয়ে গেল লোকটা। অনেক বছর পরের কথা। দীর্ঘ সংসারজীবন যাপনের পর লোকটি বৃদ্ধ অবস্থায় শুয়ে আছে মৃত্যুর অপেক্ষায়। তাকে ঘিরে আছে তার স্ত্রী, পুত্র-কন্যা। শুয়ে শুয়ে সে ভাবছে: কেন যে বিয়ে করেছিলাম! পানি খেতে ইচ্ছে করছে না তো!

(১৬) আবুল গেল তার জ্যোতিষ বাবারকাছে ডান হাত বাড়িয়ে বলল, বাবা! আমার ডান হাত চুলকায়। কী আছে সামনে বলেন?জ্যোতিষ বাবা বলল, তোর অর্থ প্রাপ্তি সুনিশ্চিত!আবুল বলল, বাবা, বাম হাতও চুলকায়!বাবা বলে, কী বলিস! তোর আরও অর্থ আসবে ।আবুল আনন্দিত গলায় বলল,বাবা বাবা,আমারডান হাঁটু চুলকায়।জ্যোতিষ বলল, তোর বিদেশ যাত্রা হবে।খুশিতে গদগদ আবুল মহা উৎসাহের সাথে বলল, আমার বাম হাঁটুও চুলকায়!!বিরক্ত হয়ে জ্যোতিষী বলল,ওরে হারামজাদা, তোরতো চুলকানি হয়েছে!!

(১৭) প্রেমিকাঃ জানু এবার ভাল করে দেখে বল না আমার শরীর এর কোন অংশ সবচেয়ে সুন্দর?

প্রেমিকঃ হুম, সেটা হল এমন একটা জিনিষ যেটা দেখতে নারিকেলের মত গোল ও সাদা। তার ভিতর আরো দুইটা বৃত্ত আছে, বৃত্ত এর উপর ডট।

প্রেমিকাঃ শয়তান! কি বলতে চাস?

প্রেমিকঃ সেটা হল তোমার চোখ।

(১৮) আদর করবেন যেভাবেঃ

প্রথমে চুমু দিন। এরপর জড়িয়ে ধরে বিছানায় শুইয়ে দিন।

জোর-জবরদস্তি করবেন না ভুলেও।

… এরপর আস্তে আস্তে নিচে হাত ঢুকিয়ে চেক করুন ভেজা কিনা।

ভেজা থাকলে তক্ষুনি আপনার বাচ্চার প্যান্ট চেঞ্জ করে দিন না হলে ঠান্ডা লেগে যেতে পারে।

(১৯) একবার সেনাবাহিনীতে নিয়োগের জন্য আই, এস, এস, বি তে এক পরীক্ষার্থী কে মৌখিক পরিক্ষায় (যেখানে মানসিক শক্তি ও উপস্থিত বুদ্ধির পরিক্ষা নেয়া হয়) সেনা কর্মকর্তা প্রশ্ন করলো, “আচ্ছা আমি যদি তোমার বিবাহিত স্ত্রীর সাথে প্রথম রাত কাটাতে চাই তাহলে তোমার কি কোন আপত্তি আছে??”পরীক্ষার্থী সাথে সাথে উত্তর দিল, “আপনার যদি আপত্তি না থাকে আমারো কোন আপত্তি নেই।। কারন আমি তো আপনার মেয়েকেই বিয়ে করব!!”

(২০) প্রেমিকঃতোমার বাবার কাছে আমাদের বিয়ের প্রস্তাব রেখেছো?

প্রেমিকাঃহ্যাঁ।

প্রেমিকঃতোমার বাবা কি বললেন?

প্রেমিকাঃতিনি জানতে চাইলেন, তোমার ব্যাঙ্কে কত টাকা আছে।

প্রেমিকঃকি বললে?

প্রেমিকাঃযা সত্যি তাই বললাম,দুলাখ।

প্রেমিকঃতোমার বাবা কি বললেন?

প্রেমিকাঃতিনি টাকাটা ধার চাইলেন।

(২১) একদিন এক বিমানে করে

১.কোহলি

২.রুবেল

৩.মেসি

৪.নেইমার

৫.আর একস্কুল ছাত্র যাচ্ছিল।

হটাৎ মধ্য আকাশে বিমানটি নষ্ট হয়ে গেল। বিমানে ছিল মাত্র ৪টি প্যারাসুট।

১ম: কোহলি বলল আমার যাওয়া দরকার।আমি মরে গেলে অনুষ্কার কি হবে? তাই বলে প্যারাসুট নিয়ে দিল লাফ।

২য় : রুবেল বললো আমি হ্যাপির সাথে খুব অন্যায় করে ফেলছি। তারে সরি না বলে আমি মরে ও শান্তি পাব না। তাই বলে প্যারাসুট নিয়ে ইয়াহু।

৩য়: মেসি বলল ভাই আমার ফ্যান দের ভালো কিছু উপহার না দিয়ে যেতে পারবো না। তাড়াহুড়া করে দিলো লাফ!

বাকি আছে একটা প্যারাসুট।

নেইমার স্কুল ছাত্রকে বলল,তুমি যাও।আমি মরে গেলে আমার ভক্তরা আমাকে গর্বের সাথে স্মরণ করবে। তখন স্কুল ছাত্র বলল তার কোনো প্রয়োজন নেই বস ২টো প্যারাসুট ই আছে ।কোহলি হালায় তাড়াহুড়া করে আমার স্কুল ব্যাগ নিয়ে লাফ মারছে....!

(২২) স্যারঃ এই ছেলে তুমি বড় হয়ে কি হতে চাও!

ছাএঃ শিক্ষক হতে চাই, স্যার

স্যারঃ কেন?

ছাএঃ শিক্ষক হলে শুধু প্রশ্ন করলেই চলে উওর

অন্যের থেকে আদায় করা যায়।

(২৩) বল্টু ও তার গার্লফ্রেন্ড

.

.

.

গার্লফ্রেন্ড : প্লিজ... আমাকে মাফ করেদিও জানু , আজ আমি তোমাকে একটাকথা বলতে চাই।

বল্টু ভাই : হ্যাঁ সুইটহার্ট, বলো বলো,কি বলতে চাও...?? গার্লফ্রেন্ড : আমি তোমার কাছে কিছু গোপন করছি। আসলে হয়েছে কি..... অন্য একজনের সাথে আমার বিয়ে ঠিক হয়ে গেছে, সামনে সপ্তাহে আমাদের বিয়ে। আমি তোমার সাথে এতটা সময় একসাথে কাটিয়েছি, ফেসবুকে কতো কতো কথা বলেছি, কতো সিনেমা দেখেছি, ডেটিং করেছি, শপিং করেছি, আর.....

বল্টু ভাই : ব্যাস, ডার্লিং...ব্যাস , তুমি দেখছি আমাকে emotional করেই ছাড়বে...। এটা কোনো ব্যাপারই না, চলো.....

.

.

.

আজ আমিও তোমার সাথে আমার বউ আর বাচ্চাদের পরিচয় করিয়ে দিই...

(২৩) এক লোকের বাড়ি সার্চ করে পুলিশ জাল নোট ছাপার মেশিন পেয়ে গেল । তাকে গ্রেফতার করতে গেলে সে পুলিশকে বলল- আমাকে গ্রেফতার করতে চান কেন? আমার কাছে তো একটাও জাল টাকার নোট পাননি। পুলিশ বলল- কিন্তু জাল নোট ছাপার যন্ত্রপাতি তো পেয়েছি । লোকটি বলল- তাহলে একটি মেয়েকে রেপ করার দায়েও আমাকে গ্রেফতার করুন । পুলিশ- আপনি কি কোন মেয়েকে রেপ করেছেন? লোকটি- না, কিন্তু রেপ করার যন্ত্র তো আমার কাছে আছে!

(২৪) স্ত্রীর সাথে অতিষ্ঠ হয়ে জামাই শাশুড়ি কে হোয়াটসয়াপ করল,

আপনার প্রডাক্ট এ জন্মগত গোলমাল আছে,যা আমাকে ডেলিভারির সময় জানানো হয় নি। আমি হয়রান হয়ে যাচ্ছি। প্লিজ মাল ফেরৎ নিয়ে অন্য ভাল মাল পাঠান। সেটা যেন এর পরের ব্যাচের হয়। মেসেজ পেয়েই শাশুড়ির জবাব :-মালের ওয়ারান্টী শেষ হয়ে গেছে।

-আমাদে মালের রিফান্ড অথবা এক্সচেঞ্জ অফার নেই।

-মাল ঘরে নেবার পর ঠিকঠাক ব্যাবহার করার দায়িত্ব গ্রাহকের।

-ডেলিভারির সময় আমরা তার ব্যভহার বিধি তোমাকে ভালোভাবে বুঝিয়েছিলাম।

-এখন আর এখানে নতুনভাবে কোন প্রডাকশনের কাজ চালু নেই।

-পুরাণ মেশিনারি সব এখন অচল অবস্থায় পরে আছে।

-তাই, তোমার কাছে যা আছে তাকে একটা বুঝে সুঝে সাবধানতার সাথে ব্যাবহার কর।

-অভ্যস্ত হওয়ার পর সব ঠিক হয়ে যাবে। ভাল থেক। সুখী হও।

 

Topics: বিবিধ জোকস ফানি জোকস বল্টু জোকস হাসার জোকস।

বিবিধ জোকস , হা হা !!!!

Login to comment login

Latest Jobs