Posted By

দারিয়াল জর্জের বাসিন্দারা - পর্ব :-১

Education 45

আলহামদুলিল্লাহ, সমস্ত প্রশংসা আল্লাহর জন্য যিনি আসমান-জমিন ও এ দুই এর মাঝখানে যা কিছু আছে সবকিছুর সৃষ্টিকর্তা।  ------------------------------------------------------------------------ 

আজ থেকে অন্তত ৬ বছর আগে ইহুদিদের জ্ঞান বিজ্ঞানে সফলতা নিয়ে নিজের ফেইজবুক পেইজে একটি পোষ্ট করেছিলাম। বহু তল্লাশির পরও সেই পেইজ ও পোষ্টটি আজ খুজে পাচ্ছিনা, পেলেই ডিলিট করে ফেলতাম। উক্ত পোষ্টে আমি ইহুদিদের খাদ্যাভ্যাস, শিক্ষানুরাগ, গর্ভাবস্থায় মায়েদের অংক কষাকষি ও বিজ্ঞানীদের ছবি বারবার দেখা ইত্যাদি বিষয়কে তাদের সফলতার জন্য দায়ী করেছিলাম। ৬ বছর পর জানলাম যাদের জীবনযাত্রা নিয়ে এতো জল্পনা কল্পনা মানুষের মাঝে বিরাজ করছে তারা আসেলে প্রকৃত ইহুদিই নয়, বরং সুকৌশলে ইহুদি  নামদারী এক বিপর্যয় সৃষ্টিকারি জাতি। যাদের ব্যাপারে মহান আল্লাহ ও তার রাসুল (সাঃ) আমাদের জানিয়েছেন শত সহস্র বছর আগেই।

এই লিখাটি ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ করতে গিয়ে তথ্য-উপাত্তের কারণে বিভিন্ন দিকে মোড় নেবে, কিন্তু পরিশেষে নির্দিষ্ট জাতিকে কেন্দ্র করে ঘনীভূত হবে। এই ধারাবাহিক লিখার মাঝে যদি সমন্বয়হীনতা পরিলক্ষিত হয় তবে তা নিজ গুনে সমন্বয় করে নেয়ার অনুরোধ রইলো।  অষ্টম শতাব্দীতে এক আশ্চর্য ঘটনার সম্মুখীন হলো পৃথিবী। বিশ্ববাসী সম্মুখীন হলো এমন কিছু মানুষের যারা হঠাৎ করেই দলে দলে এসে ইহুদি ধর্মে দীক্ষিত হতে লাগলো।

ইতিহাসবিদদের মতে তাদের এই ধর্মান্তর কোন ধর্মীয় কারণে ছিল না বরং ছিল রাজনৈতিক এবং ভৌগোলিক অবস্থানগত স্বার্থ সংশ্লিষ্ট। এই নব্য ইহুদিরা অন্যান্য ইহুদিদের তুলনায়  জ্ঞান-বিজ্ঞান, গবেষণা, পেশাগত, ব্যক্তিগত ও সামাজিক জীবনে ছিল অনেক বেশি অ্যাডভান্স। বলা বাহুল্য বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞানী হিসেবে পরিচিত আইনস্টাইন বংশানুক্রমিকভাবে ছিলেন এই নব্য ইহুদিদের গোত্রভুক্ত যদিও তার জন্ম হয়েছিলো জার্মানিতে।

 বর্তমান বিশ্বে সাহিত্য, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, চিকিৎসা শাস্ত্র, অর্থনীতি, এবং শান্তিতে যে নোবেল পুরষ্কার প্রদান করা হয় তার প্রায় শতকরা ২৫ ভাগই পায় ইহুদিরা। অথচ এরা বিশ্ব জনসংখ্যার মাত্র ০.২% মানুষ। এই পরিসংখ্যানটা বোঝার জন্য আমরা একটা সহজ উদাহরনের সাহায্য নিতে পারি।  ধরুন আপনার পরিবারের সদস্য সংখ্যা ৯ জন ছিল। দুদিন আগে যে বাচ্চাটা জন্মগ্রহণ করেছে সেসহ এখন মোট ১০ জন হলো। এবার আপনাদের মাসিক পারিবারিক খরচের ২৫% একাই যদি ঐ ২ দিনের বাচ্চার পেছনে ব্যায় করতে হয় আর বাকি ৭৫% আপনাদের ৯ জনকে ভাগ করে নিতে হয় তাহলে ব্যাপারটা কি স্বাভাবিক হবে নাকি অস্বাভাবিক? অবশ্যই তা অস্বাভাবিক। ঠিক এমনই একটি অস্বাভাবিক জাতি গোষ্টি পৃথিবিতে ছড়িয়ে পড়ে অস্থির করে তুলেছে মানব সমাজ। ছিন্নভিন্ন করে ফেলেছে সভ্যতা ও অসভ্যতার বেড়াজাল। ১৯৩৫ সালে ব্রিটিশ ইতিহাসবিদ আর্নল্ড টয়েনবি তার বিখ্যাত গ্রন্থ সিভিলাইজেশন ট্রায়ালে এই জাতিকে উদ্যেশ্য করে লিখেছিলেন "এদের উত্থানই হয়েছে আকাশ, পানি, বাতাস ও ভূমিসহ পৃথবীর সম্ভাব্য সব কিছুর নিয়ন্ত্রন নিজেদের হাতে নেয়ার জন্য।"  আপনি  চোখ ভুলিয়ে দেখুন আপনার আশেপাশে এবং একটু চিন্তা করুন কারা সুকৌশলে আপনার ব্যাক্তিগত, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় জীবনকে নিয়ন্ত্রন করছে? কারা মাত্র ৪ জন নারীর জেনেটিক্স থেকে প্রায় ১০০০০০০০ দুর্ধর্ষ মানব সন্তানে রুপান্তরিত হয়েছে, যাদের জেনেটিক্স গঠন বর্তমান সময়ের অন্য কোন মানব জাতির সাথে মিল নেই? কারা নিজেদের বাদ দিয়ে পুরো পৃথিবীকে শিখিয়ে দিচ্ছে "একটি হলে ভালো হয়, দুটি সন্তানের বেশি নয়" ??? (চলবে) 

Topics: Bangladesh Usa Uae Doha Saudi Arab

দারিয়াল জর্জের বাসিন্দারা - পর্ব :-১

Login to comment login

Latest Jobs