Posted by

অতিরিক্ত লেবু খাওয়ার অপকারিতা

Health 6

সারাদিনের ক্লান্তি দূর করতে লেবুর শরবতের তুলনা হয় না। লেবুতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ‘সি’ থাকে। লেবুর উপকারিতা অনেক, রোগ বালাই দূরীকরণ এবং শরীরের সার্বিক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। আর হজম শক্তি বাড়ানো এবং ওজন কমানোর ক্ষমতা রয়েছে। তবে অতিরিক্ত লেবু শরীরের ক্ষতির কারণ হতে পারে।

দাঁতের ক্ষয়

অতিরিক্ত লেবু খেলে লেবুতে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিড থেকে দাঁত ক্ষয়ে যাওয়ার মতো সমস্যা দেখা যায়। দাঁতের ওপর সাদা স্তর পড়ে যায়। এমনকি সফট ড্রিংকসে দাঁতের যে সমস্যা হয় লেবুর থেকেও ঠিক একই সমস্যা হয়। এছাড়াও যারা প্রতিদিন সকালে উঠে লেবু পানি খান তারা যদি দিনে অন্তত দুবার ব্রাশ করেন তাহলে দাঁতের সমস্যা অনেক কম হয়।

কোষ ক্ষতিগ্রস্ত হয় 

অনেক দিন ধরে লেবু খেলে মুখের মধ্যে থাকা নরম কোষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সেখান থেকে মুখের মধ্যে ফোঁড়া বা ফুসকুড়ি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সাইট্রিক অ্যাসিড সমৃদ্ধ যে কোনও ফল খেলেই এই সমস্যা হতে পারে। 

বমির সম্ভাবনা থাকে

 শরীরের জন্য অনেক প্রয়োজন ভিটামিন সি। অতিরিক্ত লেবুর রস খেলে অ্যাসিড তৈরি হয়। সেই সঙ্গে বমি বমি ভাব বা বমি হতেও পারে, সেখান থেকে পরবর্তীতে অনেক বড় সমস্যা দেখা দেয়। শুধু লেবু পানি নয়, যে কোনও ড্রিংকস থেকে এই সমস্যা হতে পারে। 

শরীর শুকিয়ে যাওয়া 

বারবার প্রস্রাব হওয়ার ফলে ইলেকট্রোলাইটস ও সোডিয়াম দেহের থেকে বেরিয়ে যায়। আর এই বার বার বাথরুমে যাওয়ার ফলে ব্লাডারে চাপ পড়ে, যা কিন্তু শরীরের জন্য ক্ষতিকর। এছাড়াও পটাসিয়ামের অভাব দেখা যায়, গরম পানিতে লেবু যেহেতু ডিটক্সিফিকেশনে সাহায্য করে তাই বারে বারে বাথরুমে যাওয়ার প্রয়োজন হয়। শরীল শুকনো হয়ে যাওয়ার মতো সমস্যা দেখা দেয়, কিছু দিন লেবু বা সাইট্রিক জাতীয় ফল খাওয়া বন্ধ রাখুন, তাহলেই পার্থক্য বুঝতে পারবেন। 

মাত্রা বাড়ায় আয়রনের 

অতিরিক্ত ভিটামিন সি এর কারণে রক্তে আয়রনের মাত্রা বেড়ে যায়। আয়রন কিন্তু প্রয়োজন বেশি পরিমাণ হয়ে গেলে তা ক্ষতিকর, যার ফলে শরীরের ভেতরের অঙ্গ প্রত্যঙ্গের ক্ষতি হয়। 

মাইগ্রেন বাড়ায় 

যাদের মাইগ্রেনের সমস্যা রয়েছে তাদের লেবু জাতীয় ফল না খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়, কারণ সাইট্রাস মাইগ্রেন বাড়ায়। 

সানবার্ন হয় 

অনেকের লেবুতে অ্যালার্জি থাকে অথচ তা বুঝতে পারেন না। লেবু খেয়ে রোদের মধ্যে বেরোলে স্কিনে লাল র্যাশ দেখা যায়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে কালো ছোপও দেখা দেয় যাকে আমরা সানবার্ন বলে ভুল করি। ডাক্তারি পরিভাষায় একে সাইটোফোটোডার্মাটাইটিস বলা হয়। লেবুর মধ্যে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিডের সঙ্গে সূর্যালোকের বিক্রিয়ায় এই সমস্যা দেখা যায়, এবং অতিরিক্ত লেবুর রস স্কিন ক্যানসার ডেকে আনতে পারে বলেও জানা যায়। 

ওষুধ খেয়ে লেবু বা সাইট্রিক জাতীয় ফল না খাওয়াই ভাল, ক্যালসিয়ামের ওষুধ খেলে তো খাওয়াই যাবে না কারণ, এতে হিতে বিপরীত হবে। প্রতিদিন ১২০ মি.লি. পর্যন্ত লেবুর রস খেতে পারেন, অর্থাৎ প্রতিদিন ফলের রস এবং লেবু রস মিলিয়ে ১২০ মিলি লিটারের বেশি খাওয়া শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর। তবে গর্ভবতীদের ক্ষেত্রে এবং যাদের দুগ্ধ জাতীয় খাবারে সমস্যা রয়েছে তারা ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া লেবুর রস বা খালি লেবু খাবেন না।

Topics: লেবুর কিছু অপকারিতা

অতিরিক্ত লেবু খাওয়ার অপকারিতা

Login to comment Login

You're not logged-in.

Login  — or —  Create Account
Latest Jobs

ক্লোজউই বাংলাদেশে তৈরি