স্মার্ট ক্যারিয়ার গড়ুন এফিলিয়েট মার্কেটিং এর সাথে।

Career 284

স্মার্ট ক্যারিয়ার গড়ুন এফিলিয়েট মার্কেটিং এর সাথে।

 

এফিলিয়েট  মার্কেটিং নাম শুনছেন নিশ্চয়ই? আজকে আমি আপনাদের সাথে এফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে আলোচনা করব এবং এফিলিয়েট মার্কেটিং এর কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় শেয়ার করব। সবাই কষ্ট করে পুরোটা পড়বেন প্লিজ।

 

এফিলিয়েট মার্কেটি কি?

অনলাইন আয়ের যে কয়টি মাধ্যম আছে তার মধ্যে জনপ্রিয় একটি মাধ্যম হলো এফিলিয়েট মার্কেটিং। এফিলিয়েট মার্কেটিং মানে হল নির্দিষ্টি একটি কোম্পানির প্রডাক্টস নির্দিষ্ট কমিশন নিয়ে সেল করে দেওয়া। সহজ কথায়, ধরুন আমার একটি কোম্পানি আছে। আপনি আমার কোম্পানির প্রডাক্টস সেল করে দিবেন আর এর বিনিময়ে আমি আপনাকে একটি নির্দিষ্ট পরিমান কমিশন দিবো-এটাই হল এফিলিয়েট মার্কেটিং। এফিলিয়েট মার্কেটিংএ খুব সহজেই হিউজ এমাউন্ট আয় করা যায়। তবে আপনাকে এর জন্য প্রথমে প্রচুর সময় ব্যয় করতে হবে। আপনি যদি অল্পতেই হতাশ হয়ে যান তবে এফিলিয়েট মার্কেটিং আপনার জন্য না।

 

এফিলিয়েট মার্কেটিং শুরুর প্রথমে আপনার যে কাজগুলো গুরুত্বের সাথে করতে হবে-

 

1.    আপনার মাইন্ডকে প্রিপেয়ার করতে হবে প্রতিদিন ৫-৮ ঘন্টা শ্রম দেওয়ার জন্য,

2.    প্রচুর ধৈর্য শক্তি সঞ্চয় করতে হবে। কারণ অনলাইনে যেকোন কাজ শিখতে ও আয় করতে একটু সময় ব্যয় করতে হয়। এমন অনেকেই আছেন যারা ৬-১ মাস ধৈর্য সহকারে কাজ করার পর আয় করতে পারছেন।

3.    আপনাকে একটি ভ্যালিড কোম্পানি খোঁজে বের করতে হবে, যারা সত্যিকার অর্থেই পেমেন্ট করে।

4.    এক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে, কোম্পানিটি আপনার কান্ট্রি থেকে এফিলিইয়েট মার্কেটার নেয় কিনা। আমার দেশ বাংলাদেশ এখন আমি যদি এমন একটি কোম্পানি বাছাই করি যে কোম্পানিটি বাংলাদেশ থেকে এফিলিয়েট মার্কেটার নেয় না তাহলে তো হবে না।

5.    আপনাকে অবশ্যই কোম্পানির পেমেন্ট অপশনটাও ভালো করে খেয়াল করতে হবে।তারা কি মাধ্যমে পেমেন্ট করে আর আপনি তা সহজেই উত্তলন করতে পারবেন কি না!

6.    এরপর আপনাকে যা করতে হবে তা হল প্রডাক্ট প্রমোশনের নেটওয়ার্ক সাইট খোঁজে বের করা। বুঝলেন না নিশ্চয়ই। মানে হল- আপনি যে মাধমে কোম্পানি প্রডাক্ট খুব সহজেই প্রমোট করতে পারবেন তা বাছাই করা। এক্ষেত্রে আপনি আপনার ওয়েব সাইট, ব্লগ সাইট, জিমেইল আইডি, ইয়াহু একাউন্ট ইত্যাদি সোশাল সাইট ব্যবহার করতে পারেন।

 

কয়েকটি জনপ্রিয় ফ্রি এফিলিয়েট মার্কেটিং থিম—

 

এফিলিয়েট মার্কেটিং এর ফ্রি থিমের মধ্যে যে কয়টি সেরা, বিভিন্ন এফিলিয়েট মার্কেটাররা ব্যবহার করছেন, কোয়ালিটির দিক থেকে ওয়ার্ডপ্রেস সার্টিফাইড, এখানে সে রকমই কয়েকটি থিম দেয়া হল-

1.    ভাইপারঃ আপনি ভাইপার ফ্রি এফিলিয়েট মার্কেটিং থিম দিয়ে অনায়াসে একটি ই-কমার্স সাইট তৈরি করে ফেলতে পারবেন যা এফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য সহায়ক হবে।

2.    রিভিউজাইনঃ ‘রিভিউজাইন’ নামের অসাধারণ এফিলিয়েট থিমটি ২০১৪ সালের ২৭শে আগস্ট থিম ড্রপবক্স রিলিজ দেয়। এ পর্যন্ত আপডেট দেওয়া হয়েছে ৫বার আরো অনেক নিউ ও প্রয়োজনীয় ফাংশনালিটি যোগ করে। সর্বশেষ আফডেট তারিখ হল ২৩শে মার্চ, ২০১৬। থিমটি নিয়মিত ওয়ার্ডপ্রেসে আপডেট দেওয়া হয়, তাই থিমটির কোয়ালিটি এবং সব ধরণের এফিলিয়েট ফাংশনালিটির ব্যাপারে সম্পূর্ণ নিশ্চিত থাকতে পারেন।

3.    এরিভিউঃ এফিলিয়েট মার্কেটিং এর উদ্দেশ্যে একটি প্রোডাক্ট রিভিউ ওয়েবসাইট তৈরি করতে চাইলে, এরিভিউ থিমটি অনায়াসে বেছে নিতে পারেন। আপনি আপনার প্রয়োজন এবং পছন্দ অনুসারেই আপনি আপনার পণ্যগুলো সাজাতে পারবেন কোন ঝামেলা ছাড়াই।

4.    রিথিংকঃ অনলাইনে থাকা ফ্রি এফিলিয়েট মার্কেটিং থিম এর ডিজাইন সম্পূর্ণ আলাদা। রিথিংকের ডিজাইন এমনই আলাদা যে দেখলেই আপনি এই থিমটি পছন্দ করে ফেলবেন। থিমটি সম্পূর্ণরূপে এফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্যই তৈরি করা হয়েছে। তাই, এফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য একটা ওয়েবসাইটের যত ধরণের ফাংশনালিটি দরকার হয়, এই থিমে তার সবটিই দেয়া আছে।

ধন্যবাদ সবাইকে, কষ্ট করে পড়ার জন্য। ভুলক্রিটি ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন। আর কোন সাজেশন থাকলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানাবেন।

 

 

 

 

 

Topics:

স্মার্ট ক্যারিয়ার গড়ুন এফিলিয়েট মার্কেটিং এর সাথে।

Login to comment login

Latest Jobs