Posted By

বেকারদের লজ্জা পাওয়া ঠিক না!

Health 63

মামুন (ছদ্মনাম) বিকেলের দিকে চায়ের দোকানে বসে ছিলো এক্কেবারে খামোখা! পকেটে টাকা নাই, সীমে নেট নাই, ফোনে ঢুকানোর টাকা নেই! কেমন জানি খালিখালি লাগছিলো। 

 

এই খালিখালি অবস্থা নিয়ে খালিখালি চায়ের দোকানদার ভাইয়ের সাথে গ্যাজাচ্ছিল। মানুষের পকেট খালি নিয়ে, অস্থিরতা নিয়ে তার জীবনের কষ্টের একটা পার্ট নিয়ে গ্যাজচ্ছিল। যাকে সামনে পায় তার সাথেই! এমন এক মূহুর্তে একজন বাইক থেকে নেমে দোকানে ঢুকলেন। চোখে সানগ্লাস, কেডস পরিহিত। 

 

 

হাতে একটা ব্যাগ। দোকানে ঢুকেই, "ভাই চা হবে? " 'হবে ' "এক কাপ চা ছোট্ট করে দুধ, চিনি কড়া করে পাঁচ টাকার চা দেন " 'এইতো একটা ভুল করলেন! কড়া চাইলেন আবার পাঁচ টাকা! চায়ের কাপ ছয় টাকা ' "আচ্ছা দেন " বলে দশ টাকার একটা নোট এগিয়ে দিলো দোকানদারের কাছে। 'ভাই, এই টাকা চলবে না। ' "কেন চলবে তো! " বলে ছেড়া কুঁচকে যাওয়া টাকাটা হাতে নিয়ে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে দেখলেন লোকটি। 

 

 

"এই নেন চা, আর টাকাটা পাল্টাইয়া দেন " 'আমার কাছে তো আর টাকা নেই। ' কি বললো লোকটি? বাইক চড়ুয়া, সানগ্লাস হাকানো ব্যক্তিটির কাছে ছেড়া দশটাকা ছাড়া আর কোন টাকা নাই!! এতো দেখছি আমার থেকেও করুন অবস্থায় আছে! মানবতার দিক বিবেচনা করে দোকানদার ভাই তাকে পরে টাকা দিয়ে যেতে বললো। লোকটি চলে যাওয়ার পরই মামুন শুরু করে দিলো- প্যান্ট, সানগ্লাস হাকানো ব্যক্তিটির কাছে নাকি দশ টাকার ছেড়া নোট ছাড়া নাই! এরা কিভাবে পারে! এক কাপ চা খাবে তার নাকি টাকা নাই! ভাই চা দাও। চা হাতে নিয়ে আবার শুরু। 

 

 

নিচে বাইক নিয়ে ঘুরলেই হয় না। এক কাপ চায়ের দাম দেওয়ার টাকা নাই এদের। অদ্ভুত! দোকানদার ভাই যেহেতু চায়ের দাম পান নি, তিনিও মামুনের সাথে সায় দিলেন। এই সেই বলার পর মামুন বল্ল "ভাই চায়ের দামটা মনে রাইখো। পরে দিবো! টাকা নাই।" দোকানদার ভাই শুনে শুধু একটাই কথা বললো, "ছেড়া টাকাও নাই! " একজনকে লজ্জা দিতে বেশি কিছু বলার প্রয়োজন হয় না! তবে মামুন লজ্জা পায় নাই। বেকারদের লজ্জা পেতে নেই! ( হা হা হা--- তাচ্ছিল্যের হাসি)

Topics:

বেকারদের লজ্জা পাওয়া ঠিক না!

Login to comment login

Latest Jobs