Posted By

উপেক্ষিত মানুষের উদ্বোধন-আবু তালহা বিন মনির লেখা গল্প (৪র্থ পর্ব)

Education 24

পর্ব সংখ্যা-৪------------------------

 

উপেক্ষিত মানুষের উদ্বোধন     

 আবু তালহা বিন মনির

 

 আক্কাস আলী বাড়িতে এসে কাজে লেগে যায় ।আবিরও চলে আসে।বাপ-ছেলে উঠোনে কাজ করছে ।বারান্দার খুঁটিতে আয়েশা হেলান দিয়ে দাঁড়িয়ে আছে ।তাকিয়ে আছে আক্কাস আলী ও আবিরের দিকে ।মেয়ের দিকে আক্কাস আলীর চোখ পড়ে ।কাজ রেখে মেয়ের পাশে আসেন তিনি ।মেয়ের মাথায় হাত বুলিয়ে দেন।মেয়েকে বুঝাতে চেষ্টা করেন ।বলেন- সারাজীবন তো আর বাপের ঘরে থাকা যায় না ।মেয়েদের কে স্বামীর ঘরে যেতেই হয়।এরকম মনমরা হয়ে থাকিস না মা।আমার যে খুব দুঃখ হয় তোদের মুখে হাঁসি না দেখলে।আয়েশা আক্কাস আলী কে জড়িয়ে ধরে ফুফিয়ে কাঁদতে থাকে ।আক্কাস আলী আবারও মেয়ের মাথায় হাত বুলিয়ে দেয় ।মেয়েকে ঘরে রেখে আক্কাস আলী আবারও কাজে মনোযোগ দেয়।

  বিকালের দিকে রহমত ঘটক তাদের বাড়িতে আসে।ভাল পরিবারের খোঁজ পাওয়া গেছে ।ছেলের ছোট-খাটো একটা ব্যবসা আছে।রাজী থাকলে তারা বিয়ে নিতে প্রস্তুত ।তবে একটি শর্ত আছে ।    আগ্রহের সাথে আক্কাস আলী জানতে চায় কি শর্ত ।রহমত আলী বলেন,বিশ হাজার টাকা পণ দিতে হবে ।শুনে আক্কাস আলীর মাথায় যেন আকাশ ভেঙ্গে পড়ে ।এত টাকা কোথায় পাবে।চিন্তায় পড়ে গেল আক্কাস আলী ও তার স্ত্রী । পরে জানাবে বলে তারা রহমত আলীকে বিদায় করে দেয় ।এর মধ্যে আরিফের ফোন আসে।তার কিছু টাকা লাগবে।সামনে পরীক্ষা ।পরীক্ষার ফিসসহ খাওয়া-দাওয়া,রুম ভাড়া মিলিয়ে সাত-আট হাজার টাকা লাগবে ।তাও আবার দু-তিন দিনের মধ্যে ।  আক্কাস আলীর চিন্তা আরও বেড়ে গেল ।এখন সে কি করবে?এত টাকা কোথায় পাবে?কিছুই সে বুঝে উঠতে পারছিল না।ভাবতে ভাবতে সিদ্ধান্ত নেয় তার ছেলের পড়াশোনার খরচ আগে বহন করতে হবে। ছেলে প্রতিষ্ঠিত হলে তার মেয়েকে এর থেকে ভালও পরিবার দেখে বিয়ে দিবে।মেয়ে আয়েশাও বলছে আরিফের পড়াশোনার খরচ আগে বহন করতে ।সে এখন বিয়েতে রাজি নয় ।

  আক্কাস আলী রহমত ঘটককে না করে দিলেন যে,তিনি এখন মেয়ে বিয়ে দিবেন না ।রহমত ঘঠক খুব জোড়াজোড়ি করেছে ।তাতে কাজ হয়নি।   আক্কাস আলী ছেলের জন্য টাকা জোগাড় করতে লেগে গেলেন।বহু কষ্টে টাকা জোগাড় করে পাঠিয়ে দিলেন ।টাকা পেয়ে আরিফের চোখ দিয়ে জল পড়তে লাগল ।তার ছোট ভাইটির কথা মনে পড়ল ।ছোট ভাইটি বাবার সাথে উপার্জন করে তার পড়াশোনার খরচ বহন করছে ।তাই সে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়,সে তার ভাইয়ের কষ্ট দূর করে দিবে।তার বাবার মুখে হাঁসি ফুঠাবে ।

 এদিকে গ্রামের ধনাঢ্য ব্যক্তিগণ হিংসায় জ্বলে পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে ।অতি দারিদ্র্যের মধ্যে বসবাস করেও আক্কাস আলী তার ছেলেকে উচ্চ শিক্ষিত করে গড়ে তুলছে ।এটা তাদের সহ্য হচ্ছে না ।অনেকেই আক্কাস আলীকে নিয়ে হাসাহাসি করছে ।তাকে খুচা দিয়ে নানান কথা বলছে ।আক্কাস আলী অবশ্য তাদের কথায় কর্ণপাত করেন না।আরিফকে নিয়ে আক্কাস আলীর যে স্বপ্ন তিনি সেদিকে হাঁটছেন ।তার বিশ্বাস আজ যে লোকেরা তাঁকে নিয়ে হাসাহাসি করছে একদিন তারাই তাকে বাহবা!দিবে।

      -চলবে

Topics: গল্প

উপেক্ষিত মানুষের উদ্বোধন-আবু তালহা বিন মনির লেখা গল্প (৪র্থ পর্ব)

Login to comment login

Latest Jobs