Posted By

গুগলের ২টি অজানা উপকারী অ্যাপ

Education 33

ইন্টারনেটর দুনিয়ায় গুগল এক অনন্য নাম। কোনো তথ্য লাগবে, গুগল সার্চ ইঞ্জিনে খুঁজলেই তা পাওয়া যায়। গুগল এখন বলতে গেলে সার্চ বা খোঁজ করার এক সমার্থক শব্দে পরিণত হয়েছে। রাস্তা খুঁজে পাচ্ছেন বা কোনো বাসা/অফিসের ঠিকানা খুঁজতে হবে, সেখানেও সাহয্যকারী হিসেবে হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে গুগল ম্যাপ। জি-মেইল, গুগল ড্রাইভ, গুগল ডকস, গুগল শিটস, গুগল স্লাইডস, গুগল ফরমস, ইউটিউব এগুলো ছাড়া আমাদের দিন চলে না। প্রতিনিয়তই আমরা গুগলের নানান ধরনের সেবা নিয়ে থাকি। এ লেখায় গুগলের কিছু কম পরিচিত সেবা বা অ্যাপের বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এই সেবাগুলো উপরোল্লিখিত সেবার মতই জনপ্রিয় নয়, তবে ক্ষেত্রবিশেষে বেশ উপকারী।

 

১. গুগল লেন্স

 

গুগল লেন্স (Google Lens) হচ্ছে ইমেজ রিকগনিশন টেকনোলজি, যা ইমেজ আকারে দেয়া তথ্য নিউরাল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ভিজ্যুয়ালি অ্যানাইলিসস করে সংশ্লিষ্ট আরো তথ্য সরবরাহ করে। এটি একটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সংবলিত স্মার্টফোনের ক্যামেরা ও ডিপ মেশিন লার্নিং টেকনোলজির সমন্বয়ে গঠিত ইমেজ সার্চিং ও ট্রান্সলেট করার সেবা। ক্যামেরা দিয়ে কোন লেখা, বাসার ঠিকানা, ভিজিটিং কার্ডের তথ্য ইত্যাদির দিকে তাক করলে তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্ক্যান করবে অ্যাপটি এবং সেই লেখা কপি করে নেয়া যাবে সহজেই, যেকোনো পণ্যের ছবি তুলে নিয়ে সেই পণ্য বা তার কাছাকাছি পণ্যের তথ্য ও সেই পণ্য কেনার জন্য অনলাইন শপের লিঙ্ক দেখাবে এই অ্যাপ, কোনো বইয়ের মলাটের ছবি তুলে তা দিয়ে বইয়ের তথ্য জানা যাবে সহজেই, যেকোনো ওয়েব লিঙ্ক বা ইউআরএল স্ক্যান করে সেটি ব্রাউজ করা যাবে, ক্যাফে বা রেস্টুরেন্টের ভিতরে বা বাইরে থেকে ছবি তুলে দিলে তা অ্যানালাইসিস করে রেস্টুরেন্টের বা ক্যাফের রেটিং ও রিভিউ দেখাবে এই অ্যাপ, যেকোনো জনপ্রিয় ল্যান্ডমার্ক বা ঐতিহাসিক কোনো স্থাপনা বা জায়গার ছবি তুললে তার সম্পর্কেও বিস্তারিত জানা যাবে, গাছের ছবি তুলে তা শনাক্ত করা ও সেই গাছের তথ্য দেখা যাবে, কোনো প্রাণী যেমন- কুকুরের ছবি তুললে সেই কুকুরের জাত বা ব্রিড শনাক্ত করতে পারবে এই অ্যাপ, ভিনদেশী ভাষার সাইনবোর্ডে থাকা লেখার ছবি তুলে তা অনুবাদ করে নেয়া যাবে এবং কিউআর বা কুইক রেসপন্স কোডও পড়তে পারে এই গুগল লেন্স। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ও ডিপ মেশিন লার্নিংয়ের উৎকৃষ্ট একটি উদাহরণ হচ্ছে এই অ্যাপ। প্লেস্টোর থেকে এই অ্যাপটি ডাউনলোড করে নিতে পারেন। তবে ওয়ানপ্লাস সিক্সটি মডেলের স্মার্টফোনে এটি ক্যামেরা অ্যাপের সাথে ইন্ট্রিগেটেড করে দেয়া হয়েছে।

 

২.ইউটিউব গো

 

ইউটিউব গো হচ্ছে ইউটিউবের একটি বিশেষ রূপ, যা দিয়ে লো এন্ড ডিভাইসে কম গতির ইন্টারনেটে কম মোবাইল ডাটা খরচ করে ভিডিও উপভোগ করার সুযোগ দেয়। কম রিসোর্স ব্যবহার করে আরো ইফিশিয়েন্টলি ভিডিও চালানোর জন্য বানানো হয়েছে ইউটিউব গো। কম শক্তিশালী সেটের জন্য যেমন রয়েছে ফেসবুক লাইট, যা কম রিসোর্স ব্যবহার করে; ঠিক তেমনি ইউটিউব গো হচ্ছে ইউটিউবের লাইট বা হালকা ভার্সন। যাদের ইন্টারনেট স্পিড স্লো বা যারা এখনো ২জি ইন্টারনেট ব্যবহার করেন তাদের জন্য ইউটিউব গো একটি আদর্শ ভিডিও দেখার অ্যাপ। ধীরগতির ইন্টারনেটেও এটি বেশ ভালোভাবে ভিডিও চালাতে পারে। এতে আপনি কোনো ভিডিও স্ট্রিমিং করার আগেই লো রেজ্যুলেশনে প্রিভিউ দেখাতে থাকবে এবং একটি পপআপ বক্সে ভিডিও কোয়ােলিটি অনুযায়ী কত মেগাবাইট ডাটা খরচ হবে দেখাবে। যেসব ভিডিও বারবার দেখা হয়, সেগুলো মোবাইল স্টোরেজে বা এসডি কার্ডে ডাউনলোড করে রাখা যাবে। পরে ইন্টারনেট কানেকশন ছাড়াই তা উপভোগ করতে পারবেন যেকোন সময়। মজার ব্যাপার হচ্ছে, সেভ করে রাখা ভিডিও অন্যদের সাথে শেয়ার করার ব্যবস্থা আছে।

Topics: মোবাইল প্রযুক্তি মোবাইল অ্যাপ গুগল গুগল অ্যাপ মোবাইল টেকনোলজি

গুগলের ২টি অজানা উপকারী অ্যাপ

Login to comment login

Latest Jobs