দুরুত্ব প্রেম বা লং ডিসটেন্স রিলেশনশিপ

Career 122

দুরুত্ব প্রেম বা লং ডিসটেন্স রিলেশনশিপ একি সাথে খুব সহজ আবার খুব কঠিন। সহজ কারনটা হলো বিশ্বাস, বিশ্বাসের ডানা টা যদি শক্ত পোক্ত হয় সেই ডানায় ভর করে অনেক টা পথ পারি দেয়া যায়। আর কঠিন কারণটা, আজকের দিনে বিশ্বাস টাই খুব দুর্লভ।

যেহেতু মানুষ দুটো অনেক টাই দুরুত্বে থাকে। আর কথা, সেটাও তো খুব কম। কিন্তু তবুও যে মনের মধ্যে অনেক কথা জমা হয় বলা হয়ে উঠে না। সেই কথা গুলো জমা হয় মন খারাপের কাগজের স্তুপে। কিন্তু সেই চিঠি গুলো কি সব টুকু আবেগ উজার করতে পারে? আচ্ছা কেমন হয়, সেই চিঠি গুলো?

একটু চেষ্টা কর যাক!

প্রিয় দুরুত্বের মানুষটি,                  আচমকাই আজ তোমাকে চিঠি লিখতে খুব ইচ্ছে হলো। আসলে আমাদের মাঝে কথা টাও তো খুব কম হয়, তাই অনেক কথাই রোজ মনের মধ্যে জমা হয় অথচ তোমায় বলে ওঠা হয় না। আজ সেই সব কথা তেমায় জানাতে ইচ্ছে হলো। জানিনা কতটা লিখতে পারবো, তোমাকে নিয়ে বল্তে গেলে, তোমাকে নিয়ে লিখতে গেলে,আমার সবটাই এলোমেলো হয়ে যায়। এই যে আমরা দুজন কখন কথা বল্লব, এই অপেক্ষা টাই মনে হয় আমাদেরকে এক সুতোয় বেধে রেখেছে। তোমার সাথে আমার কবে দেখা হবে! তুমি  সেই কবে তোমার দেয়া প্রিয় নাম টা ধরে আমায় ডাকবে, চোখে চোখ রাখবে, হাতে হাত রাখবে,এই অপেক্ষা গুলো দিয়েই মনে হয় আমি সুখে বাচি। নাহ আমরা সুখে বাচি। জানে তোমায় চোখের সামনে দেখার আকুলতা নিয়ে আমি গোটা বছর তাকাতে পারি, জানো আমি সত্যি অপেক্ষা করি তুমি কবে আসবে আমার সামনে,কবে দেখা হবে আমাদের সামনা সামনি। সে কথা ভাবলেই নাম না জানা অনুভুতি খেলা করে মনের ভিতর। কবে সেই অপেক্ষার বাধ ভাঙ্গবে আমার, নাহ আমাদের। কবে দুজন কে নিয়ে আমরা দুজনে সম্পূর্ণ ডুবে যাবো। সাক্ষি থাকবে সেই দিন টা সাক্ষি থাকবে আমাদের দুরুত্ব প্রেম টা। দেখো না আমাদের শহরটা আলাদা, সব কিছু আলাদা। তবুও কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে আমারা এক হয়ে আছি। আমাদের ভালো থাকার সম্বল টা খুব সল্প। ওইতো সরাদিনের মধ্যে মাত্র হাতেগোনা কয়েকটা হেয়াটস এপ মেসেজ কিছুক্ষনের ফেন কল। আমার ছুটি তে ওই একটু একটু হয়ে যাওয়া ভিডিও কল। এই টুকু নিয়ে আমরা ভিষণ সুখে আছি। জানো তোমার জন্য ওই এক দুদিনের অপেক্ষা তেই আমি যে কত টা ভালে আছি,তেমায় আমি বলে বোঝাতে পারবো না। আচ্ছা তুমি বুঝতে পারে তুমি যখন, আমার এতো কেয়ার নেও আমার যেনো ঠান্ডা না লাগে তার জন্য এতো এতো সতর্কবাণী বলো। আমি ঠিক কতটা নিশ্চুপ হয়ে যাই তোমার ভালোবাসাগুলো পেয়ে। আমার অসুস্থতার রাতে, মন খারাপের দিন গুলোতে যখন ফোনের ওপারে একরাস আবেগ নিয়ে তুমি আমায় বলো "সব ঠিক হয়ে যাবে বাবু চিন্তা করিও না।" জানো আমি ঠিক ততটাই নিশ্চিন্ত হই!

আচ্ছা রাতে যখন তোমায় বলি বাবুনি এবার ঘুমিয়ে পরে আমি তোমার মাথায় হাত বুলিয়ে দিচ্ছি, ঘুম আসে গো তোমার চোখে? জানো মাঝে মাঝে আমার মন খারাপ হয়, খুব কষ্ট হয়। যখন দেখি আমার চারপাশের সবাই, যখন ইচ্ছা তার প্রিয় মানুষ টাকে,চেখের সামনে দেখতে পারছে ছুতে পারছে, তখন না আমার গলার কাছে কি যেনো একটা হয়। বিশেষ বিশেষ দিন গুলো তে খুব মিস করি তেমায়। শোননা আমার যেদিন দেখা করবো সেদিন তুমি শাড়ি আমি পাঙ্জাবি,এক থোরা লাল গোলাপ আর তোমার প্রিয় ক্যাটবেরি নিয়ে  আসবো,সারাদিন তোমার হাতে হাত রেখে ঘুড়বো। এই শুনো না তোমার শাড়ির আচলে বেধে রাখবে তো আমায়? জানি তো রাখবে!  জানোতো তবুও ভয় করে খুব, খুব ভয় করে। মাঝে মাঝে মনে হয় আমার আর তোমার মধ্যকার কিলোমিটারের দুরুত্বটা যদি কোন দিন মনকে ছুয়ে ফেলে। যদি তোমার বা আমার মনে অন্য কারো আনা গেনা হয়। শুনো আমরা কিন্তু তাকে খুব দৃঢ হাতে সরিয়ে দিবো। অচেনা এই শহরে দুরত্বের রুপকথার গল্প বানাবো দুজনে। জানে আমি সত্যি খুব ভালো আছি তেমার সাথে। তোমার দুরুত্বে আর আমার ব্যাস্ততায় কেউ কখনো অভিযোগ করি নি,এটাই কিন্তু আমাদের ভালোবাসার সূত্র। এইযে এখন আমরা এক সাথে নেই আমরা দুরত্বের বাজিতে রোজ জিতে যাচ্ছি। আজকের এই না পাওয়া গুলোই আগামীদিন গুলোকে ডাকছে হাতছানি দিয়ে। তবুও দেখনো, মন তো সব সময় কথা শোনে না। অবাদ্ধ হয়ে যায় মাঝে মাঝে। শোনো না তুমি তো আমার সব টা জানো, সব টা চেনো, সব টা বুঝো, তাই আমার ওই মন খারাপ গুলো, আর তোমায় সল্প সময় দেয়ার কারণ গুলো তুমি বুঝে নিও আর আমার, তোমার প্রতি আচমকা আসক্ত হয়ে যাওয়া  আবেগময় রাত গুলোকে তোমার নরম ঠোটের আদরে মলিন করে দিও। নিকটে আনিও আমাদের দুরুত্বটা কে,অপেক্ষা গুলেকে বেধে রেখো ভালোবাসার রঙ্গিন সুতো দিয়ে।

Topics:

দুরুত্ব প্রেম বা লং ডিসটেন্স রিলেশনশিপ

Login to comment login

Latest Jobs