Posted By

পোর বা রোমকূপ কি এবং কেন হয়,এ থেকে বাঁচার উপায়।

Beauty 28

বর্তমান যুগের প্রায় প্রতিটি নারীই তার রুপ সম্পর্কে সচেতন।

যেই মেয়েটির সাজগোজ বলতে অল্প একটু কাজল বা স্নো-ই সই, সেই মেয়েটিও চায় তাকে সবার কাছে সুন্দর দেখাক।

যার কারনে প্রায় প্রতিটি নারীই অল্প কিছু হলেও নিজের যত্ন করে থাকেন।

তবে যত্ন করতে যেয়ে অনেক সময়ই আমরা অনেক ভুল করে থাকি।

অথবা অনেক সময় নিজেকে সুন্দর দেখাতে গিয়ে উলটে নিজের ক্ষতি করে ফেলি।

তবে এসব কথা কিভাবে পোর রিলেটেড সেটাই ভাবছেন তো?

চলুন আলোচনা করা যাক।

 

 

????পোর কি?

পোর হচ্ছে,আমাদের শরীরে অবস্থিত অসংখ্য ছিদ্র, যা আমাদের শরীরে ঘামের মাধ্যমে তাপমাত্রা বা টেম্পারেচার ঠিক রাখতে সহায়তা করে। 

 

????পোর কখন হয়?

পোর বা রোমকূপ সাধারনতঃ, আপনার জন্মের পর থেকেই আপনার শরীরে থাকে। অন্যান্য শারিরীক অংগের মত পোরও আপনার শরীরের একটি অংশ।

শুধু একটি নির্দিষ্ট বয়স পর এই পোর গুলো আকারে বড় হতে থাকে,এবং আপনার বা আমাদের মনে হয় আমাদের নতুন করে শরীরে পোর হয়েছে।

আসলে এমনটি নয়।

বিভিন্ন কারনে পোর বড় হতে পারে,যেমনঃ

  1. বয়স
  2. সানবার্ন বা রোদে পোড়ার জন্য।
  3. হরমনাল সমস্যা।
  4. অনেকেই ফেসিয়াল ওয়াক্স করার পরে,পোর গুলো বন্ধ করেন না।
  5. পার্লারে বা ঘরে স্টিম করার পরেও পোর গুলো পুনরায় বন্ধের জন্য কোনো ব্যবস্থা না করা।

    6.অনেকেই ব্রনস্টিক ব্যবহার করেন,এবং ব্রনের ব্যাকটেরিয়া বের  করার পরে সে জায়গাটায়কে ওপেন রেখে দিন। 

 

 উপরোক্ত কারন গুলোর মধ্যে প্রায় বেশির ভাগ কারন গুলো, আপনার অজান্তেই আপনার নিজেরই সৃষ্টি।

সুতরাং এবার আসা যাক,পোর বড় হওয়ার কারনে আমাদের কি কি সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়,

 

  1. অতিরিক্ত তেলতেলে স্কিন।
  2. মুখ সব সময় ঘামতে থাকা।
  3. মেকাপের পর ঘেমে বা অয়েলি হয়ে মুখটা প্যাল হয়ে যাওয়া।
  4. বয়সের তুলনায় বেশি বয়স্ক দেখানো।
  5. অতিরিক্ত ব্ল্যাকহেডস /হোয়াইট হেডস হওয়া।

       6.পোর্সে নোংরা আর তেল জমে ব্রন হওয়া।

 

????পোর্স থেকে মুক্তি পাবার উপায়?

 

আবারও ভুল করলেন,পোর্স থেকে মুক্তি পাওয়া আমাদের পক্ষে কখনোই সম্ভব নয়।

ধরুন,

যদি সেটা টেকনিক্যালি সম্ভব হয়ও তবে কি ঘটবে?

আপনার শরীর থেকে তাপমাত্রা বের হতে পারবে না বা ঘাম হবে না।

এর ফলে স্কিন ড্রাই হয়ে ফেটে যাবে।

পোর্স থেকে মুক্ত হবার উপায় নেই ঠিকই তবে ওপেন পোর্স বা বড় হয়ে যাওয়া রোমকূপ থেকে আমরা মুক্ত হতে পারি,

এর মধ্যে বেশ কয়েকটি ঘরোয়া উপায় হচ্ছে,

  • মুলতানি মাটি ঃ- মুলতানি মাটি ওপেনপোর্সকে বন্ধ করতে অসাধারন কাজ করে থাকে।এটিকে প্যাক হিসেবে বা স্ক্রাবার হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে।

 

  • বরফঃ- বরফ হচ্ছে পোর্স বন্ধের সবচেয়ে কার্যকরী ঘরোয়া রিমেডি। যেকোন মেকাপের আগে যদি আপনি দুই তিন টুকরো বরফ নিজের ফেসিয়াল এরিয়ায় ঘষে নিন,পোর্সটা অনেক সময় ধরে বন্ধ থাকবে এবং মেকাপ  একদমই নষ্ট হবে না।
  • ডাবল ক্লিনজিংঃ- বাইরে থেকে এসে অবশ্যই মুখটাকে ডাবল ক্লিনজিং করুন।এ ক্ষেত্রে ভালো মানের ফেসওয়াশ ব্যবহার করুন
  • ঘরোয়া উপায়ে ফেসিয়াল করুনঃ- হাতের কাছে আছে এমন অনেক কিছু দিয়েই ফেসিয়াল করা যেতে পারে,যেমন ধরুন,এক টুকরো আপেল।সেটাকে ১৫মিনিট মত মুখে ঘষুন।এর মধ্যে থাকা এন্টিঅক্সিডেন্ট আপনার রোমকুপ গুলোকে হেলদি রাখতে সাহায্য করবে।
  • এলোভেরাঃ- এলোভেরা রুপচর্চায় ব্যবহার হয়ে আসছে প্রাচীন যুগ থেকেই। এই এলোভেরার রয়েছে হাজারো গুনাগুন।এর মধ্যে একটি হচ্ছে এটি পোরকে ছোট রাখতে সহায়তা করে।
  • সান্সক্রিমঃ-ওপেন পোর্স থেকে বাঁচতে অবশ্যই যেই জিনিসটি আপনার অপরিহার্য সেটা হচ্ছে ভালো মানের সান্সক্রিম।আপনার স্কিনের সাথে যায় এমন একটি সান্সক্রিম কিনুন,তবে কেনার সময় অবশ্যই SPF 50+++ দেখে কিনুন।
  • স্কিন ক্লিন রাখুনঃ- ডেইলি স্কিনটাকে এটলিস্ট ৪-৫ বার পরিষ্কার পানি দিয়ে ক্লিন করুন।

 

 

 

 

Topics:

পোর বা রোমকূপ কি এবং কেন হয়,এ থেকে বাঁচার উপায়।

Login to comment login

Latest Jobs